ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯

সংকটে ভবিষ্যত লিবরা ইনফিউশনের: উৎপাদন বন্ধের ঘোষণা

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-২৬ ০৮:৩৯:৫৫ || আপডেট: ২০১৯-০৮-২৬ ০৮:৪৫:২৭

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ঔষুধ ও রসায়ন খাতের লিবরা ইনফিউশন লিমিটেড উৎপাদন বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে। আল আরাফা ইসলামি ব্যাংক কোম্পানিটির ঋণপত্র বা এলসি (Letter of credit-LC) বন্ধ করে দেয়ায় কাঁচামালের অভাবে কোম্পানিটির ডায়রিয়া ও ডেঙ্গু’র চিকিৎসায় ব্যবহৃত এবং কোম্পানির মূল পণ্য স্যালাইন উৎপাদন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

২৫ আগস্ট গণমাধ্যমে প্রকাশিত মূল্য সংবেদনশীল এক তথ্যে বলা হয়েছে, লিবরা ইউনিট-২ এ বিনিয়োগ করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে আল আরাফা ব্যাংক কোনো বিনিয়োগ করেনি। ব্যাংকটি নানা টালবাহানা করে কোম্পানিটিকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে বলেও সংবেদনশীল তথ্যে অভিযোগ করা হয়।

তথ্য মতে, আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক ইতিমধ্যেকোম্পানিটির সকল প্রকার কাঁচামাল, যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জাম আমদানী এলসি (ঋণপত্র) খুলতে অপারগতা জানিয়ে বন্ধ করে দিয়েছে। সেই কারণে ডেঙ্গু ও ডায়রিয়া রোগের জীবনরক্ষাকারী স্যালাইন উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেছে।

মূল্য সংবেদনশীল তথ্যে আরও জানানো হয়েছে, লিবরা ইনফিউশন লিমিটেড এ ইউনিট-২ এর বিনিয়োগের প্রতিশ্রুতি থাকলেও অদ্যবধি বিনিয়োগ না করে টালবাহানা ও কালক্ষেপন করে এই কোম্পানিটিকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এদিকে কোম্পানিটিকে ডেঙ্গু ও ডায়রিয়ার স্যালাইন উৎপাদনের ব্যাপারে স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয় থেকে কঠোরভাবে মনিটরিং ও তদারকী করা হচ্ছে এবং সরবরাহের ব্যাপারে কোম্পানিকে প্রচন্ড তাগিদ দিচ্ছে। কিন্তু আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংকের সিদ্ধান্তের কারণে কোম্পানির স্যালাইন উৎপাদন বন্ধ রয়েছে।

উল্লেখ্য, আল-আরাফাহ ইসলামী ব্যাংক কোম্পানির সমস্ত ব্যাংকিং সুবিধা চার বছর ধরে বন্ধ করে রাখে। পরে দুই পক্ষের সমঝোতার মাধ্যমে অমীমাংসিত ব্যাংকিং সুবিধা সমূহ গত ১২ আগস্ট ২০১৮ তারিখে আপোষনামা তে ইউনিট-২ তে পুন:বিনিয়োগ উল্লেখ করে সমাধান হয়। অদ্যবধি পূন: বিনিয়োগের ব্যবস্থা না করে ব্যাংকটি গত ২ মে ২০১৯ তারিখের একটি পত্রে “Pari-passu charge প্রদানে অনাপত্তি প্রদান করা যেতে পারে” বলে উল্লেখ করে। পরে ব্যাংকটি গত ২২ জুলাই ২০১৯ তারিখে একটি পত্রে পরিপূর্ণ Pari-passu দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে Renewal দেয়। যেটার পরিপ্রেক্ষিতে কোম্পানিটি Renewal অনুমোদনে অস্বীকৃতি জানায়। তাই ব্যাংকটি কোম্পানিটির এলসি সুবিধা বন্ধ করে দেয়। উল্লেখিত আপোষনামা অনুযায়ী ব্যাংক পূন:বিনিয়োগ না করে এবং পরে Pari-passu দিতে স্বীকার করা স্বত্তেও এখন পরিপূর্ণ Pari-passu দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে ব্যাংক Renewal দেয়। যার কারণে কোম্পানির ব্যাংকের পূন:তফসিলকৃত দায়দেনা পরিশোধ করা অসম্ভব এবং যা Going concern threat এর সামিল।