ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বাণিজ্যিক উৎপাদনে কনফিডেন্সের সহযোগী প্রতিষ্ঠান

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-২১ ০৯:৩০:০৫ || আপডেট: ২০১৯-০৮-২২ ০৯:০৩:৪৬

কনফিডেন্স সিমেন্ট লিমিটেডের সহযোগী প্রতিষ্ঠান কনফিডেন্স পাওয়ার রংপুর লিমিটেড গত ১২ আগস্ট ২০১৯ তারিখ থেকে বাণিজ্যিকভাবে বিদ্যুৎ উৎপাদন শুরু করেছে। আর এ কেন্দ্রে উৎপাদিত বিদ্যুতের সম্পূর্ণটুকু বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের (বিপিডিবি) কাছে বিক্রি করা হবে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

প্রাপ্ত তথ্যমতে, কনফিডেন্স পাওয়ার রংপুর লিমিটেডের ৯৯ শতাংশ শেয়ার ধারণ করছে কনফিডেন্স পাওয়ার হোল্ডিংস লিমিটেড। আর কনফিডেন্স পাওয়ার হোল্ডিংস লিমিটেডের ৪১ শতাংশ ইকুইটি ক্যাপিটাল কনফিডেন্স সিমেন্টের। উল্লেখ্য, কনফিডেন্স পাওয়ার রংপুর লিমিটেডের বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতা ১১৩ মেগাওয়াট। কনফিডেন্স পাওয়ার হোল্ডিংস লিমিটেডের বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য মোট চারটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর মধ্যে কনফিডেন্স পাওয়ার বগুড়া লিমিটেড, কনফিডেন্স পাওয়ার বগুড়া ইউনিট-২ লিমিটেড ও কনফিডেন্স পাওয়ার রংপুর লিমিটেডের উৎপাদন ক্ষমতা ১১৩ মেগাওয়াট করে এবং জোডিয়াক পাওয়ার চিটাগং লিমিটেডের ৫৪ দশমিক ৩৬ মেগাওয়াট।

এদিকে গত ৩০ জুন ২০১৮ সমাপ্ত হিসাববছরের জন্য কোম্পানিটি ১৫ শতাংশ নগদ ও ২০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ওই সময়ে ইপিএস হয়েছে ছয় টাকা ৯৩ পয়সা এবং এনএভি দাঁড়িয়েছে ৭৬ টাকা। কোম্পানিটি ২০১৭ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরেও ১৫ শতাংশ নগদ ও ২০ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ দিয়েছে। ওই সময় ইপিএস হয়েছে ১১ টাকা সাত পয়সা ও এনএভি দাঁড়িয়েছে ৮৪ টাকা ১০ পয়সা। ‘এ’ ক্যাটোগরির এ কোম্পানিটি ১৯৯৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয়।

কোম্পানিটির শেয়ারদর শূন্য দশমিক ৬৭ শতাংশ বা এক টাকা কমে প্রতিটি শেয়ার সর্বশেষ ১৪৯ টাকা ২০ পয়সায় হাতবদল হয়, যার সমাপনী দর ছিল ১৪৯ টাকা ৬০ পয়সা। দিনজুড়ে এক লাখ ৫২ হাজার ১৭৬টি শেয়ার মোট ৭৬০ বার হাতবদল হয়, যার বাজারদর দুই কোটি ৩০ লাখ পাঁচ হাজার টাকা। এক বছরে শেয়ারদর সর্বনিম্ন ১২৮ টাকা ১০ পয়সা থেকে ২৪৩ টাকা ৪০ পয়সায় হাতবদল হয়।

১০০ কোটি টাকা অনুমোদিত মূলধনের বিপরীতে পরিশোধিত মূলধন ৬৪ কোটি ৭৯ লাখ ১০ হজার টাকা। রিজার্ভের পরিমাণ ২৭৯ কোটি ৭৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা।

কোম্পানিটির মোট ছয় কোটি ৪৭ লাখ ৯০ হাজার ৬৬৯টি শেয়ার রয়েছে। ডিএসইর সর্বশেষ তথ্যমতে মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের কাছে রয়েছে ২৯ দশমিক ৮৮ শতাংশ শেয়ার, প্রাতিষ্ঠানিক ২৫ দশমিক ৮৯ শতাংশ এবং সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে ৪৪ দশমিক ২৩ শতাংশ শেয়ার রয়েছে। সর্বশেষ বার্ষিক প্রতিবেদন ও বাজারদরের ভিত্তিতে শেয়ারের মূল্য আয় (পিই) অনুপাত ২১ দশমিক ৫৯ এবং হালনাগাদ অনিরীক্ষিত ইপিএসের ভিত্তিতে ২৫ দশমিক ১ পয়েন্ট।

ক্যালেন্ডার এবং আর্কাইভ