ঢাকা, শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯

বিডি ওয়েল্ডিংয়ের মালিকানা আসছে আলিফ গ্রুপ

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-৩০ ০৯:১০:৩৭ || আপডেট: ২০১৯-০৭-৩০ ১৬:৩২:৫১

এবার তালিকাভুক্ত বন্ধ কোম্পানি বিডি ওয়েল্ডিংয়ের এক-চতুর্থাংশ মালিকানা নিতে যাচ্ছে শেয়ারবাজারে আলোচিত আলিফ গ্রুপ। রাষ্ট্রায়ত্ত বিনিয়োগ সংস্থা আইসিবির কাছ থেকে এ কোম্পানির এক কোটি আট লাখ শেয়ার কিনতে চায় গ্রুপটি। বিডি ওয়েল্ডিং এ খবর দিয়েছে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

বিডি ওয়েল্ডিংয়ের ৪ কোটি ২৯ লাখ ২০ হাজার শেয়ারের মধ্যে ১ কোটি ৮ লাখ ৪০ হাজার শেয়ারের মালিক আইসিবি। এই পুরো শেয়ার কিনতে আইসিবির সঙ্গে আলিফ গ্রুপ চুক্তি করেছে। শেয়ার কেনাবেচার এ চুক্তি শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থার অনুমোদন সাপেক্ষে কার্যকর হবে।

এ খবরে শেয়ারটি সার্কিট ব্রেকারের সর্বোচ্চ দরে কেনাবেচা হয়েছে। রোববারের তুলনায় প্রায় ১০ শতাংশ বেড়ে সর্বশেষ ১৫ টাকা ৯০ পয়সায় কেনাবেচা হয়েছে। লেনদেনের শেষ পর্যন্ত পাঁচ লাখের বেশি শেয়ার কেনার আদেশ থাকলেও কেনাবেচা হয়েছে মাত্র ৯ হাজার ২১০টি। মালিকানা বদল ইস্যুতে এ খবর প্রকাশের আগে গত তিন মাসে বিডি ওয়েল্ডিংয়ের শেয়ারদর ২০ টাকা থেকে ১২ টাকায় নামে।

জানা যায়, গত রোববার আইসিবির সঙ্গে তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান চুক্তি সই করেছে। চুক্তির শর্ত অনুযায়ী, বিএসইসির অনুমোদন সাপেক্ষে আগামী ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে তা কার্যকর হবে। তবে কত দরে শেয়ার কেনার চুক্তি হয়েছে, সে বিষয়ে কিছু জানাতে রাজি হননি তিনি। তবে গত রোববার চুক্তির দিনের বাজার মূল্যের থেকে কিছুটা কমবেশি দরে কেনাবেচার চুক্তি হয়েছে। বিএসইসি অনুমোদন করলে ওই দরে শেয়ার কেনাবেচা হবে।

আলিফ গ্রুপের এমডি অবশ্য জেড ক্যাটাগরির বিডি ওয়েল্ডিংয়ের শেয়ার কেনার আগে এটির তালিকাচ্যুতির বিষয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বা স্টক এক্সচেঞ্জ থেকে নিশ্চয়তা পেতে চান। ডিএসইতে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের অধীনে তালিকাভুক্ত কোম্পানি বিডি ওয়েল্ডিংয়ের এক-তৃতীয়াংশেরও বেশি শেয়ার কিনে ২০০৯ সালে এটির মালিকানায় এসেছিল আইসিবি। তৎকালীন আট উদ্যোক্তার মধ্যে পাঁচ উদ্যোক্তার সমুদয় শেয়ার কিনে নিয়েছিল সরকারি প্রতিষ্ঠানটি।

২০১৫ সাল থেকে বিডি ওয়েল্ডিং ক্রমাগত লোকসান দিয়ে যাচ্ছে। এর প্রধান কারণ কয়েক বছর ধরে উৎপাদন সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে। এমনকি সাউথইস্ট ব্যাংকের ঋণের অর্থ পরিশোধের জন্য চট্টগ্রামে কোম্পানিটির কারখানার আড়াই একর জমির পুরোটা বিএসআরএম গ্রুপের কাছে কোটি টাকায় বিক্রি করেছে। এখন ঢাকার ধামরাইয়ে জমি কিনে নতুন কারখানা স্থাপনের কাজ চলছে। অর্থের অভাবে দীর্ঘ সময়েও এ কাজ শেষ হয়নি।