ঢাকা, বুধবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৯

চেরি টমেটো চাষে ভাগ্য ফিরল সাগরের

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-১১ ১৬:৩০:১২ || আপডেট: ২০১৯-০৭-১১ ১৬:৩০:১২

অনলাইন ডেস্ক: জয়পুরহাটের এক মেধাবী ছাত্র পড়াশোনা শেষ করে এদিক সেদিক ঘুরাফেরা না করে নতুন এই উদ্যমে নিজের জমিতে চেরি টমেটো চাষ করে এখন নিজের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটিয়েছে। যা এখন এলাকার সবার কাছে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

জয়পুরহাট কালাই উপজেলার নওয়াপাড়া গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে শাহারিয়ার আলম সাগর। ২০১৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স ডিগ্রি শেষ করে চাকরি নামক সোনার হরিণটির পিছনে না ঘুরে তিনি তার চাচাতো ভাইয়ের পরামর্শে নিজের বাবার ১ বিঘা জমিতে এই চেরি টমেটোর চাষ শুরু করেন। তার এই এক বিঘা জমিতে চাষ করতে সব মিলিয়ে খরচ হয়েছে প্রায় ৬০ হাজার টাকা। তবে তিনি এখনো পযর্ন্ত সেখান থেকে প্রায় ১ লক্ষ টাকার অধিক টমেটো বিক্রি করেছেন। বর্তমানে প্রায় দেড় লক্ষ টাকার টমেটো বিক্রি করতে পারবেন বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেছেন।

কালাই উপজেলার থুপসারা গ্রামের আসলাম হোসেন বলেন, এতো অল্প সময়ে সাগর চেরি টমেটো চাষ করে যে সফলতা পেয়েছে তা আমাদের কাছে এখন অনুকরণীয়। তার টমেটো চাষ দেখে আমারও অনুপ্রেরণা পাচ্ছি। আগামী বছর থেকে টমেটো চাষ করব আশা করছি।

কাঁচাকুল গ্রামের এম রাসেল আহমেদ বলেন, আমি এই টমেটোর নাম শুনেছি তবে কখনো দেখিনি, তাই সাগর ভাইয়ের এই চাষ দেখতে এসেছি। দেখে বেশ ভালো লেগেছে তাই সঙ্গে করে বাড়ির জন্য দুই কেজি টমেটো কিনে নিয়েছি।

জয়পুরহাট জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক সুধেন্দ্রনাথ রায় জানান, বর্তমানে ঢাকার বড় বড় হোটেলগুলোতে এই টমেটোর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। সেই সঙ্গে এই টমেটোর অনেক বেশি গুণাগুণও রয়েছে। তিনি আরও জানান, সাগরের এই সাফল্য দেখে ওই এলাকার অনেক বেকার এখন এই চেরি টমেটো চাষের দিকে ঝুঁকছে। সূত্র: দৈনিক অধিকার